কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত ও ড্রাইভিং ভিসার দাম ২০২৪

কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত,,কুয়েত হচ্ছে একটি উন্নত রাষ্ট্র যেখানে বাংলাদেশ থেকে শুরু করে সারা বিশ্বের সব দেশ থেকেই মানুষ কাজ করতে যায়। তাছাড়া দেশটি পুরোপুরি ইউরোপের মতো কারণ অন্যান্য দেশের চেয়ে কুয়েত অর্থনীতিতে অনেক এগিয়ে রয়েছে। এছাড়াও অন্যান্য দেশের চেয়ে কুয়েতের টাকার মান অনেক বেশি। এজন্য বাংলাদেশের হাজারো মানুষ রয়েছে যারা কুয়েতে কাজের উদ্দেশ্যে যেতে চায়। বর্তমান যুগের মানুষ সবসময় সব ধরনের কাজকর্মে আরাম-আয়েশ চায়।

আর এজন্য যারা কুয়েত কাজের উদ্দেশ্যে যেতে চাচ্ছে তাদের মধ্যে অধিকাংশ লোক কুয়েত ড্রাইভিং ভিসায় যেতে চায়। কারণ কুয়েতের অন্যান্য ভিসার চেয়ে ড্রাইভিং ভিসায় অনেক সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যায়। এছাড়াও কুয়েতের ড্রাইভিং ভিসায় অল্প পরিশ্রমে প্রতি মাসে অনেক টাকা ইনকাম করা যায়। তবে কুয়েতে ড্রাইভিং ভিসায় যাওয়ার আগে অবশ্যই আপনাদের কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত তা জেনে নিতে হবে।

কারণ ড্রাইভিং ভিসার মধ্যেও কয়েকটি ক্যাটাগরি রয়েছে। এছাড়াও কুয়েতের বিভিন্ন কোম্পানি থেকে ড্রাইভিং ভিসার জন্য প্রতিবছর লোক নিয়োগ দিয়ে থাকে। আর সেগুলো সার্কুলারের মাধ্যমে অনলাইনে ড্রাইভিং ভিসার আবেদন করে খুব সহজেই কুয়েতে যেতে পারবেন। তাই আজকের পোস্টে কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত এবং কুয়েত ড্রাইভিং ভিসার দাম কত সহ আরো কিছু তথ্য আপনাদের মাঝে তুলে ধরবো।

কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত

বাংলাদেশের হাজারো মানুষ রয়েছে যারা কুয়েতে কাজের উদ্দেশ্যে অর্থাৎ সুযোগ-সুবিধার জন্য কুয়েতে ড্রাইভিং ভিসায় যেতে চাচ্ছে। কিন্তু তাদের মধ্যে অধিকাংশ লোকের কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত তা ভালোভাবে জানা নেই। কুয়েতে ড্রাইভিং ভিসায় কাজের জন্য যেতে চাইলে অবশ্যই কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত তা জেনে নিবেন কারণ কুয়েজ ড্রাইভিং ভিসার কাজ কয়েকটি ক্যাটাগরিতে হয়ে থাকে। যেমন কুয়েতে ব্যক্তিগত ড্রাইভিং, কোম্পানির ড্রাইভিং, অফিস ড্রাইভিং ও ভাড়ায় চালিত ড্রাইভিং ইত্যাদি।

আপনি যদি কুয়েত ড্রাইভিং ভিসায় জান তাহলে এইসব ক্যাটাগরির ড্রাইভিং এর কাজ পেয়ে যাবেন। তাছারা এইসব ড্রাইভিং ভিসার কাজের ক্যাটাগরির বেতন আলাদা আলাদা হয়ে থাকে। বর্তমানে কুয়েতে নতুন অবস্থায় ড্রাইভিং ভিসার বেতন হচ্ছে ৫০ হাজার থেকে ৬০ হাজার টাকা পর্যন্ত। এছাড়াও যারা কুয়েতের কোন লোকের ব্যক্তিগত ড্রাইভার তাদের বেতন হচ্ছে ৪০ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত।

তবে আপনারা যদি ভাল কোন ড্রাইভিং কোম্পানিতে যেতে পারেন তাহলে প্রতি মাসে ৬০ হাজার থেকে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত বেতন পেয়ে যাবেন। তাছাড়াও আপনারা যদি লোকাল ভাবে কুয়েতে ড্রাইভিং করেন তাহলে প্রতি মাসের বেতন সম্পূর্ণ আপনার ওপর নির্ভর করবে। আর কুয়েত ড্রাইভিং ভিসার বেতন সাধারণত ১৪০ দিনার থেকে ১৭০ ডিনার পর্যন্ত হয়ে থাকে। আশা করি আপনারা জানতে পেরেছেন কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত টাকা।

কুয়েত ড্রাইভিং ভিসার দাম

বর্তমানে আপনারা যদি কুয়েতে ড্রাইভিং ভিসায় যেতে চান তাহলে অবশ্যই একটি ড্রাইভিং ভিসা থাকতে হবে। কিন্তু আপনাদের ড্রাইভিং ভিসা হাতে পাওয়ার জন্য সার্কুলার দেখে অনলাইনের মাধ্যমে ড্রাইভিং ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। কুয়েতের কোম্পানি থেকে প্রতিবছরে একবার করে শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে থাকে। এছাড়াও গতবছরের তুলনায় এ বছরে কুয়েতের ভিসার দাম অনেক বেড়ে গেছে।

বর্তমানে আপনারা যদি কুয়ে ত ড্রাইভিং ভিসা করতে চান তাহলে ৮ লক্ষ টাকার মতো খরচ পড়বে। তবে সময়ের ব্যবধানে ভিসার দাম অনেক সময় কমে যায় আবার অনেক সময় এর থেকেও বেশি হয়ে যায়। তাছাড়া আপনারা বাংলাদেশের কোন এজেন্সির মাধ্যমে খুব সহজেই কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা করে নিতে পারবেন। তবে আপনারা সব সময় সার্কুলারের মাধ্যমে ভিসা করার চেষ্টা করবেন এতে খুব অল্প টাকায় কুয়েত যেতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ কুয়েতে শ্রমিকদের বেতন কত ও কুয়েত ভিসার দাম কত

কুয়েত কোম্পানি ড্রাইভিং ভিসার বেতন কত

প্রতিবছরেই কুয়েতের বিভিন্ন ড্রাইভিং কোম্পানি থেকে শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে থাকে। আর সেই সার্কুলার দেখে বাংলাদেশের হাজারো মানুষ রয়েছে যারা কোম্পানির ড্রাইভিং ভিসার আবেদন করে। তবে অধিকাংশ লোকের কুয়েত কোম্পানির ড্রাইভিং ভিসার বেতন কত সে বিষয়ে জানা থাকে না। কিন্তু কোম্পানি ড্রাইভিং ভিসায় যাওয়ার আগে অবশ্যই কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত তা জেনে নিতে হবে।

কারণ কুয়েতে বিভিন্ন ধরনের কোম্পানির রয়েছে আর একে কোম্পানির বেতন একেক রকম ভাবে নির্ধারণ করে দিয়ে থাকে। বর্তমানে কুয়েত কোম্পানি ড্রাইভিং ভিসার বেতন ৪০ হাজার থেকে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত দিয়ে থাকে। কিন্তু আপনাদের যদি ড্রাইভিং এর ওপর ভালো অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে প্রতি মাসে এর থেকেও বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বন্ধ না খোলা

বাংলাদেশ থেকে যারা কুয়েতে ড্রাইভিং ভিসায় কাজের জন্য যেতে চাচ্ছে তাদের মধ্যে অধিকাংশ লোক জানে না কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বন্ধ না খোলা। আপনারা যদি এই বিষয়ে জেনে না নেন তাহলে বাংলাদেশের কিছু প্রতারক দালালের কাছে প্রতারিত হতে পারেন। এজন্য অনেকেই কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বন্ধ না খোলা তা জানার জন্য অনলাইনে অনুসন্ধান করে।

তাই এখন আপনাদের জানাবো কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বন্ধ না খোলা। গতবছরের কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা এবং অন্যান্য ভিসা কিছু সমস্যার কারণে বন্ধ করে দিয়েছিল। তবে বর্তমানে কুয়েতে ড্রাইভিং ভিসা চালু আছে। আপনারা চাইলে বাংলাদেশের কোন এজেন্সির মাধ্যমে কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা আবেদন করে খুব সহজে কুয়েতে ড্রাইভিং ভিসায় পৌঁছে যেতে পারবেন।

কুয়েত ড্রাইভিং ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে

বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে যারা কুয়েতে ড্রাইভিং ভিসায় যাওয়ার চিন্তা-ভাবনা করছে তাদের মধ্যে অধিকাংশ লোক কুয়েত ড্রাইভিং ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে তা সঠিক ভাবে জানে না। কিন্তু আপনারা যদি এই বিষয়ে ধারণা নিয়ে না রাখেন তাহলে পাসপোর্ট, ভিসার এবং বিমানের টিকেট কাটতে গিয়ে প্রতারিত হতে পারেন। তাই এখন আপনাদের জানাবো কুয়েত ড্রাইভিং ভিসায় যেতে কত টাকা খরচ হয়।

বর্তমানে আপনারা যদি কুয়েত ড্রাইভিং ভিসায় যেতে চান তাহলে প্রথমে বাংলাদেশ থেকে একটি বৈধ পাসপোর্ট করে নিতে হবে যার খরচ পড়বে ৮ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত। এছাড়াও এজেন্সির মাধ্যমে কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা করতে প্রায় ৮ লক্ষ টাকার মত খরচ পড়বে। তাছাড়াও আরো কিছু খরচ আছে যেগুলো মিলে সর্বমোট আপনার বাংলাদেশ থেকে কুয়েত যেতে ১০ লক্ষ টাকার মতো খরচ পড়বে।

শেষ কথাঃ

আজকের পোস্টে কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত এবং কুয়েত ড্রাইভিং ভিসার দাম কত সহ আরো কিছু তথ্য আপনাদের জানানোর চেষ্টা করেছি। আশা করি আপনারা কুয়েত ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত এবং কুয়েত ড্রাইভিং ভিসার দাম কত সে বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। যদি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কাছে ভালো লেগে থাকে তাহলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিন। এছাড়াও এইরকম আরও নতুন নতুন কিছু তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন।

Leave a Comment