অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন ও ভিসার দাম ২০২৪

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন নিয়ম,,সারা বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর মধ্যে আরেকটি সুন্দর ও উন্নত দেশ হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। এই দেশটি প্রায় ইউরোপের মতই উন্নত এবং ইউরোপের মতোই অনেক সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যায়। এছাড়া অস্ট্রেলিয়ায় সব ধরনের কাজে উন্নত মানের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়। এজন্য অস্ট্রেলিয়ায় যতগুলো শ্রমিক রয়েছে তাদের সব কাজেই পরিশ্রম কম হয় আর এজন্য অল্প পরিশ্রমে প্রতি মাসে ভালো একটি পরিমাণে টাকা ইনকাম করা যায়।

এজন্য বাংলাদেশের হাজারো শ্রমিক রয়েছে যারা অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন ভিসায় কাজের জন্য যেতে চায়। এছাড়াও অস্ট্রেলিয়া থেকে প্রত্যেক বছরের শুরুতে বিভিন্ন কাজের জন্য অস্ট্রেলিয়া সরকার শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে থাকে। আর সেই বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের হাজারো শ্রমিক রয়েছে যারা সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন ভিসার জন্য আবেদন করে। অস্ট্রেলিয়ায় কয়েকটি ক্যাটাগরির ভিসা রয়েছে কিন্তু তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা।

অস্ট্রেলিয়া থেকে প্রত্যেক বছরেই কৃষি কাজের জন্য শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে থাকে। আর বাংলাদেশের কিছু সংখ্যক মানুষ রয়েছে যারা সেই বিজ্ঞপ্তি দেখে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন করে। তবে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন করতে চাইলে অবশ্যই শিক্ষাগত যোগ্যতা, কাজের উপর অভিজ্ঞতা এবং উন্নত মানের যন্ত্রের ব্যবহার করার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। তাই আজকের পোস্টে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন করার নিয়ম এবং অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার দাম সহ আরো কিছু তথ্য তুলে ধরবো।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা

প্রত্যেক বছরেই অস্ট্রেলিয়া সরকার কোম্পানি গত ভাবে কৃষিকাজের জন্য বাংলাদেশ সহ আরো অন্যান্য দেশে শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে থাকে। আর এই বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের হাজারো বেকার শ্রমিক রয়েছে যারা অল্প টাকায় সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার জন্য আবেদন করে। এছাড়াও বেসরকারিভাবে দালালের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার আবেদন করতে পারবেন তবে খরচ অনেক বেশি হবে।

অস্ট্রেলিয়া যদি কোন পরিচিত লোক থাকে তাহলে তাদের মাধ্যমে কোন এজেন্সির সাহায্য নিয়ে অল্প খরচে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার আবেদন করে অল্প খরচে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসা বের করতে পারবেন। তবে বর্তমানে অস্ট্রেলিয়া ভিসার দাম অনেক বেড়ে গেছে। বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসা তৈরি করতে ৫ লক্ষ টাকার উপরে খরচ হয়। এখন আপনাদের জানাবো অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার মধ্যে কি কি কাজ রয়েছে।

  • চাষাবাদের কাজ
  • ফুলের বাগানের কাজ
  • বাগানের কাজ
  • গবাদি পশু পালনের কাজ
  • ফার্মের কাজ
  • আঙ্গুরের বাগানের কাজ
  • কমলার বাগানের কাজ
  • ফসল উৎপাদনের কাজ
  • ফসল বাছাই করার কাজ ইত্যাদি।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার দাম কত

বর্তমানে বাংলাদেশের হাজারো শ্রমিক রয়েছে যারা অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসায় বিভিন্ন কাজের জন্য যেতে চায়। কিন্তু তাদের অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার দাম কত বা অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসা করতে কত টাকা খরচ হয় তা জানা থাকে না। সাধারণত অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার মধ্যে কয়েকটি ক্যাটাগরির কাজ রয়েছে। আর কাজের ক্যাটাগরি অনুযায়ী ভিসার দাম নির্ধারণ করা থাকে।

বর্তমানে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার দাম ৫ লক্ষ থেকে ৬ লক্ষ টাকা। গতবছরে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা ৫ লক্ষ টাকার মধ্যে তৈরি করা যেত। কিন্তু এখন অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসা আবেদন সহকারে ভিসার দাম ৫ লক্ষ থেকে ৬ লক্ষ টাকার উপরে খরচ হয়। এছাড়াও যাবতীয় অন্যান্য খরচ দিয়ে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসায় যেতে প্রায় ৮ লক্ষ থেকে ১২ লক্ষ টাকার মতো খরচ হয়।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার বেতন কত

অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার মধ্যেও কয়েকটি ক্যাটাগরির কাজ রয়েছে যেমন চাষাবাদের কাজ, বাগানের কাজ, গবাদি পশু পালনের কাজ, ফার্মের কাজ এবং আরো কিছু কাজ রয়েছে। আর এগুলো একেক কাজের বেতন একেক রকম ভাবে নির্ধারণ করা থাকে। এইসব কাজের বেতন আপনার কাজের অভিজ্ঞতা এবং কাজের ক্যাটাগরির উপর সম্পূর্ণ নির্ভর করে।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের বেতন হচ্ছে ৪০ হাজার থেকে ৬০ হাজার টাকা পর্যন্ত। এছাড়াও অস্ট্রেলিয়া বিভিন্ন ফার্মের কোম্পানী রয়েছে আর সেগুলো ফার্মের কোম্পানিতে কৃষি কাজের শ্রমিকদের ৭০ হাজার টাকার মতো বেতন দিয়ে থাকে। তবে কৃষিকাজের ওপর যদি আপনার ভালো অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে প্রতি মাসে ৮০ হাজার টাকার উপরে ইনকাম করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের বেতন কত টাকা

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে

বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে যারা অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসায় কাজের জন্য যেতে চাচ্ছে তাদের মধ্যে অধিকাংশ শ্রমিক অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে তা জানে না। অস্ট্রেলিয়া যেতে অনেক ভাবে খরচ হয় যেমন পাসপোর্ট তৈরি করতে, ভিসা খরচ, বিমান ভাড়া এবং আরো অন্যান্য খরচ রয়েছে। বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার দাম ৫ লক্ষ থেকে ৬ লক্ষ টাকার উপরে।

পাসপোর্ট তৈরি করতে ১০ হাজার থেকে ১৪ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ হয়। বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার বিমান ভাড়া ৮০ হাজার থেকে ২ লক্ষ টাকার মতো। সব খরচ মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসায় যেতে আপনার সর্বমোট ৮ লক্ষ থেকে ১২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত খরচ পড়বে। তবে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার দাম আপনার কাজের ক্যাটাগরির ওপর সম্পূর্ণ নির্ভর করে।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন ফরম

বর্তমানে ঘরে বসেই খুব সহজেই অনলাইনের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং আবেদন ফরম সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। তবে একেক দেশের ভিসার আবেদন করার জন্য এক একটা ওয়েবসাইট থাকে। এজন্য অনেকেই বুঝতে পারেনা অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার আবেদন কোন ওয়েবসাইট থেকে করতে হয়।

তাই এখন আপনাদের জানাবো কোন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার আবেদন ফরম সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। আপনারা https://immi.homeaffairs.gov.au/ এই লিংকে ক্লিক করে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার আবেদন ফরম সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। এরপর ওই ফর্মটি সম্পূর্ণ পূরণ করে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন করার নিয়ম

বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যেতে চাইলে অবশ্যই একটি অস্ট্রেলিয়ার যেকোনো ক্যাটাগরির ভিসা লাগবে। কারণ ভিসা ছাড়া এক দেশ থেকে আরেক দেশে কখনোই প্রবেশ করা যায় না। তবে অস্ট্রেলিয়ার যেকোনো ভিসা তৈরি করার জন্য অবশ্যই ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। অধিকাংশ শ্রমিক নিজেদের কাজের অভিজ্ঞতা অনুযায়ী ভিসার জন্য আবেদন করে।

তবে বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ কৃষি কাজে অভ্যস্ত এজন্য কিছু সংখ্যক মানুষ অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার জন্য আবেদন করতে চায়। কিন্তু কোথা থেকে বা কোন ওয়েবসাইট থেকে ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার জন্য আবেদন করতে হয় তা জানে না। তাই এখন আপনাদের মাঝে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার আবেদন করার নিয়ম গুলি তুলে ধরবো।

  • প্রথমে https://immi.homeaffairs.gov.au/ এই লিংকে ক্লিক করে কৃষি ভিসা আবেদনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।
  • এরপর একটি একাউন্ট লগইন করে নিবেন যদি কোন অ্যাকাউন্ট না থাকে তাহলে নতুন করে একাউন্ট তৈরি করে নিবেন।
  • তারপর Visa Wizard অথবা Apply For a Visa অপশন সিলেক্ট করুন।
  • যখন আবেদন ফরমটি আপনার সামনে চলে আসবে তখন যাবতীয় সব গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়ে ফর্মটি পূরণ করুন।
  • এরপর আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বা ডকুমেন্টগুলো যুক্ত করে দিন।
  • আবেদনের করার জন্য ফি দিতে হবে, আবেদন ফি দিয়ে পরিশোধ করুন।
  • পরিশেষে আবেদন ফরমটি সাবমিট করে দিন এবং আবেদনটি অনুমোদিত হলে আপনার দেওয়া ঠিকানায় ইমিগ্রেশন পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

শেষ কথাঃ

আজকের পোস্টে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি ভিসা ও ভিসা খরচ সহ যাবতীয় সব ধরনের তথ্য এবং অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন করার নিয়ম গুলি জানানোর চেষ্টা করেছি। আশা করি আপনারা অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা এবং কৃষি ভিসা আবেদন করার নিয়ম সহ সব ধরনের তথ্য জানতে পেরেছেন। যদি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কাছে ভালো লেগে থাকে তাহলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিন। এছাড়াও এইরকম আরো নতুন নতুন কিছু তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন।

Leave a Comment