অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা ২০২৪ কত টাকা লাগে ও কি কি লাগে

ইউরোপের মতো আরেকটি উন্নত দেশ হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। বর্তমানে অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা চালু রয়েছে এবং বাংলাদেশের হাজারো শ্রমিক রয়েছে যারা বেসরকারি এবং সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসার জন্য আবেদন করে যাচ্ছে। সাধারণত অস্ট্রেলিয়া দেশটি অন্যান্য দেশের থেকে উন্নত হওয়ায় সব ধরনের কাজে উন্নত মানের প্রযুক্তি বা যন্ত্র ব্যবহার করা হয়। এজন্য অস্ট্রেলিয়ায় যে সকল কাজের শ্রমিক রয়েছে তাদের পরিশ্রম অনেক কম হয় এবং বেশি টাকা ইনকাম হয়।

এছাড়াও অস্ট্রেলিয়ার কাজের ভিসার মধ্যেও কয়েকটি ক্যাটাগরির কাজ রয়েছে। আর এগুলো কাজের বেতন একেক রকম ভাবে নির্ধারণ করা থাকে। তবে বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার ভিসা বের করা অনেক কঠিন এবং ভিসা তৈরি করতে অনেক টাকা খরচ হয়। এছাড়া কিছু সংখ্যক মানুষ রয়েছে যারা অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা ২০২৪ কত টাকা লাগে তা জানে না। তাই আজকের পোস্টে অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে, কি কি কাজ আছে এবং আরো কিছু তথ্য তুলে ধরবো।

অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা

বাংলাদেশের হাজারো মানুষ রয়েছে যারা অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন কাজের উদ্দেশ্যে যাচ্ছে বা অনেকেই যাওয়ার চিন্তা-ভাবনা করছে। যার যার কাজের অভিজ্ঞতা অনুযায়ী অস্ট্রেলিয়ার ভিসা লাগিয়ে থাকে। এছাড়াও অস্ট্রেলিয়ায় সব ধরনের কাজের মান অনেক বেশি এজন্য অস্ট্রেলিয়ায় প্রত্যেকটা কাজে বেতন অনেক বেশি পাওয়া যায়। এছাড়া বাংলাদেশের কিছু বেকার শ্রমিক রয়েছে যাদের আর্থিক সমস্যার কারণে বড় কোনো রাষ্ট্রে বা অস্ট্রেলিয়া যেতে পারে না।

তবে তারা বোয়েসেলের মাধ্যমে অল্প টাকায় অস্ট্রেলিয়ার ভিসা তৈরি করে নিতে পারবে। এছাড়াও যারা অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসায় যেতে চাচ্ছে তাদের মধ্যে অধিকাংশ লোক জানতে চায় অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসার মধ্যে কি কি কাজ রয়েছে। তাই এখন আপনাদের জানাবো অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসার মধ্যে কি কি কাজ থাকতে পারে। তাই এখন আপনাদের জানাবো অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসার মধ্যে কি কি ক্যাটাগরির কাজ থাকতে পারে।

  • কনস্ট্রাকশন
  • ইলেকট্রনিক্স
  • মেকানিক্যাল
  • ড্রাইভার
  • হোটেল
  • ফুড প্যাকেজিং
  • লেবার
  • ক্লিনার
  • কৃষিকাজ
  • গবাদি পশু পালন ইত্যাদি।

অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা ২০২৪ কত টাকা লাগে

বর্তমানে বাংলাদেশের হাজারো মানুষ রয়েছে যারা অস্ট্রেলিয়ার কাজের ভিসায় বিভিন্ন কাজের উদ্দেশ্যে যেতে চায়। কারণ অস্ট্রেলিয়া হচ্ছে একটি উন্নত দেশ যেখানে সব ধরনের কাজে উন্নত মানের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও অস্ট্রেলিয়ার শ্রমিকদের পরিশ্রম অনেক কম হয় এবং প্রতি মাসে ভালো একটি পরিমাণে টাকা ইনকাম করা যায়। বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার কাজের ভিসা চালু আছে কিন্তু সরকারি ভাবে অস্ট্রেলিয়ার কাজের ভিসার কোন সার্কুলার বা নিয়োগ নেই।

তবে বেসরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়ার কাজের ভিসা বা অন্যান্য ভিসা তৈরি করা অনেক কঠিন এবং অনেক বেশি টাকা খরচ হয়। এছাড়া বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ায় সব ধরনের কাজের মান এবং কাজের চাহিদা অনেক বেশি। এজন্য বাংলাদেশের হাজারো শ্রমিক রয়েছে যারা অস্ট্রেলিয়া যেতে চাচ্ছে। তবে যাওয়ার পূর্বে অস্ট্রেলিয়ার কাজের ভিসা খরচ বা কত টাকা লাগে তা জেনে নিতে হবে। তাই এখন আপনাদের অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা ২০২৪ কত টাকা লাগে বা কত টাকা খরচ হয় তা তুলে ধরবো।

অস্ট্রেলিয়ার সার্কুলার অনুযায়ী সরকারিভাবে অস্ট্রেলিয়ার কাজের ভিসা করতে চান তাহলে ২ লক্ষ থেকে ৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত খরচ পড়বে। এছাড়াও যদি দালালের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা করতে চান তাহলে ৬ লক্ষ টাকার উপরে খরচ পড়বে। আর যদি এজেন্সির মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা করতে চান তাহলে ৩ লক্ষ থেকে ৫ লক্ষ টাকার উপরে খরচ পড়বে। মূলত বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসায় যেতে সর্বমোট ৮ লক্ষ থেকে ১২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত খরচ পড়বে।

আরো পড়ুনঃ অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা খরচ কত টাকা

অস্ট্রেলিয়া যেতে কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন

বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যেতে চাইলে অবশ্যই অস্ট্রেলিয়ার একটি ভিসা প্রয়োজন পড়বে। তবে অস্ট্রেলিয়ার কাজের ভিসা পাওয়ার জন্য অবশ্যই অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। কিন্তু আবেদন করার জন্য কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র লাগবে। তবে অনেকে জানেনা অস্ট্রেলিয়া যেতে কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন পড়ে। যদি আবেদনের সময় কাগজপত্র সঠিকভাবে প্রধান না করেন তাহলে আবেদন বাতিল হবে। তাই এখন আপনাদের জানাবো অস্ট্রেলিয়া যেতে কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন।

  • একটি বৈধ পাসপোর্ট
  • জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি
  • ইংরেজি ভাষার দক্ষতা সার্টিফিকেট
  • সাদা ব্যাকগ্রাউন্ড এর চার কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট
  • স্বাস্থ্য বীমা
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট
  • করোনা ভাইরাস টিকার কার্ড
  • মেডিকেল সার্টিফিকেট
  • IELTS পরীক্ষার স্কোর সর্বনিম্ন ৬ থাকতে হবে
  • সর্বনিম্ন বয়স ১৮ বছর এবং সর্বোচ্চ ৪৫ বছর থাকতে হবে ইত্যাদি।

শেষ কথাঃ

আজকের পোস্টে অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা ২০২৪ কত টাকা লাগে এবং কি কি কাগজপত্র লাগে তা বিস্তারিত জানানোর চেষ্টা করেছি। আশা করি আপনারা অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে বা কত টাকা খরচ হয় তা বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। যদি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কাছে ভালো লেগে থাকে তাহলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিন। এছাড়াও এরকম আরো নতুন নতুন কিছু তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন।

Leave a Comment