বাহরাইন কোন কাজের চাহিদা বেশি ও কাজের বেতন কত ২০২৪

বিশ্বে উন্নত দেশগুলির মধ্যে একটি পরিচ্ছন্ন এবং রাষ্ট্র হচ্ছে বাহরাইন। যেখানে প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে শুরু করে বিশ্বের প্রায় সব দেশ থেকেই বিভিন্ন কাজের জন্য গিয়ে থাকে। বর্তমান সময়ে বাহরাইন যাওয়ার জন্য কয়েক ধরনের ভিসা পেয়ে যাবেন। তবে এখন বেশিরভাগ মানুষ বাহরাইন কাজের জন্য ভিসার আবেদন করে থাকে। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় অধিকাংশ মানুষের বাহরাইন কোন কাজের চাহিদা বেশি এবং বিভিন্ন কাজের বেতন সম্পর্কে বিস্তারিত জানা থাকে না।

মূলত বাহরাইন ভিসার আবেদন করার পূর্বে অবশ্যই বাহরাইন কোন কাজের চাহিদা বেশি এবং কাজের বেতন জেনে নিতে হবে। কারণ বর্তমানে বাহরাইন কয়েক ধরনের কাজের চাহিদা রয়েছে আর একেক কাজের বেতন একেক রকম ভাবে নির্ধারণ করা থাকে। তবে বাহরাইন শুধু যে সাধারণ মানের কাজ আছে তা না বাহরাইন বড় বড় বিভিন্ন কোম্পানির কাজও পাওয়া যায়। তাই আজকের পোস্টে সবার সুবিধার্থে বাহরাইন কোন কাজের চাহিদা বেশি এবং কাজের বেতন তুলে ধরবো।

বাহরাইন কোন কাজের চাহিদা বেশি

বর্তমান সময়ে বাহরাইন কয়েক ধরনের কাজের চাহিদা রয়েছে। তবে গতবছরের তুলনায় এ বছরে বাহরাইন যাওয়ার খরচ বা বাহরাইন ভিসার দাম অনেকটাই বেড়ে গেছে। এজন্য বর্তমান সময়ে বাহরাইন যেতে অনেক বেশি টাকা খরচ হয়ে যাচ্ছে। সাধারণত আপনারা এজেন্সির সাথে কথা বলে বাহরাইন কাজের ভিসা বা ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন তবে ভিসা খরচ অনেক বেশি পড়বে।

সেক্ষেত্রে যখন বাহরাইন সরকার বিভিন্ন কাজের চাহিদা অনুযায়ী বাহরাইন কাজের ভিসা বা ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় কাজের জন্য শ্রমিক নিয়োগ করবে তখন আপনারা ঘরে বসেই অনলাইনে বাহরাইন ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। তবে ভিসার আবেদন করার আগে বাহরাইন কোন কাজের চাহিদা বেশি তা জেনে নিতে হবে। তাই এখন বাহরাইন কোন কাজের চাহিদা বেশি সেগুলো কাজের নাম তুলে ধরা হলো।

  • কনস্ট্রাকশন
  • ইলেকট্রিশিয়ান
  • মেকানিক্যাল
  • ড্রাইভার
  • সেভ
  • রেস্টুরেন্ট বা হোটেল ক্লিনার
  • রোড ক্লিনার
  • গ্লাস ক্লিনার
  • শপিংমল
  • বাসা বাড়ির কাজ
  • কৃষিকাজ ইত্যাদি।

বাহরাইন সর্বনিম্ন বেতন কত

সাধারণভাবে বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর মতই বাহরাইন কাজের ধরন এবং কাজের অভিজ্ঞতার ওপর নির্ভর করে বেতন দিয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে যদি আপনাদের কাজের অভিজ্ঞতা ভালো থাকে তাহলে বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন আর যদি কাজের অভিজ্ঞতা না থাকে তাহলে কম টাকা ইনকাম করতে পারবেন। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশি টাকায় বাহরাইন সর্বনিম্ন বেতন ৪০ হাজার টাকা। সেক্ষেত্রে নতুন অবস্থায় কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে মাসে ৫০ হাজার টাকার উপরে ইনকাম করতে পারবেন।

বাহরাইন কোন কাজের বেতন বেশি

বাহরাইন হচ্ছে বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর মধ্যে একটি যেখানে কাজের জন্য যেতে চাইলে অবশ্যই কাজের উপর ভালো অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। এখন অনেকেই বাহরাইন ভিসা আবেদন করার আগে বাহরাইন কোন কাজের বেতন বেশি তা জানার আগ্রহ করে। সাধারণত বাহরাইন থেকে বেশি বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে চাইলে সে কোন একটি কাজের অভিজ্ঞতা নিয়ে যেতে হবে।

বাহরাইন বর্তমান সময়ে কনস্ট্রাকশন, ইলেকট্রিশিয়ান এবং মেকানিক্যাল কাজের বেতন অনেক বেশি পাওয়া যায়। তবে এইসব কাজের জন্য যেতে চাইলে অবশ্যই কাজের ওপর অভিজ্ঞতা সার্টিফিকেট থাকতে হবে। বাহরাইন এসব কাজের বেতন হচ্ছে ৮০০ দিনার থেকে ১০০০ ডিনার যা বাংলাদেশী টাকায় হিসেব করলে ৩ লক্ষ টাকার কাছাকাছি বেতন পাওয়া যায়।

আরো পড়ুনঃ ব্রুনাই কোন কাজের চাহিদা বেশি ও কাজের বেতন কত

বাহরাইন কাজের বেতন কত

সাধারণত বাহরাইন কাজের উপর ভিত্তি করে বেতন দিয়ে থাকে। যদি কাজের উপর আপনার ভালো অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে প্রতি মাসে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন কিন্তু অবশ্যই আপনাদের কাজের ধরন ভালো হতে হবে। বর্তমান সময়ে বাহরাইন যেতে অনেক বেশি খরচ হয়ে যায়। এজন্য যখন বাহরাইন সরকার কাজের চাহিদা অনুযায়ী বাহরাইন ওয়ার্ক পারমিট ভিসা বা বাহরাইন কাজের ভিসায় শ্রমিক নিয়োগ দিবে তখন আপনারা অল্প খরচে বাহরাইন কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

তবে অবশ্যই আপনাদের কাজের ওপর ভালো অভিজ্ঞতা রাখতে হবে। এছাড়াও এজেন্সির সাথে কথা বলেও বাহরাইনের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন সেক্ষেত্রে ভিসা সহ যাবতীয় খরচ মিলে অনেক বেশি টাকা খরচ হয়ে যাবে। এজন্য যদি আপনাদের বাহরাইন কোন পরিচিত লোক থাকে তাহলে তাদের সাহায্য নিয়ে এজেন্সির মাধ্যমে অল্প টাকায় বাহরাইন কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক বাহরাইন কাজের বেতন কত বা বাহরাইন বেতন কেমন পাওয়া যায়।

কনস্ট্রাকশন, ইলেকট্রিশিয়ান, মেকানিক্যাল ও ড্রাইভিংঃ বাহরাইনে এইসব কাজের প্রচুর চাহিদা এবং বেতন ও অনেক বেশি পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে যদি আপনাদের এইসব কাজের ওপর অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে প্রতি মাসে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন। বর্তমান সময়ে এইসব কাজের বেতন মাসে বাহরাইনের টাকায় ৮০০ দিনার থেকে ১০০০ ডিনার। যা বাংলাদেশী টাকায় হিসেব করলে মাসে বেতন ২ লক্ষ ৩০ হাজার থেকে ২ লক্ষ ৯০ হাজার টাকার উপরে।

হোটেল বা রেস্টুরেন্ট ক্লিনার, গ্লাস ক্লিনার ও রোড ক্লিনারঃ বাহরাইনের এসব কাজের চাহিদা রয়েছে তবে অন্যান্য কাজের তুলনায় এইসব কাজের বেতন কম পাওয়া যায়। বর্তমান সময়ে বাহরাইন এইসব কাজের বেতন মাসে ২৫০ দিনার থেকে ৫০০ দিনার পর্যন্ত। যা বাংলাদেশী টাকায় হিসেব করলে মাসে বেতন ৭০ হাজার থেকে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। এছাড়াও এইসব কাজের জন্য বাহরাইনে কোন প্রকার কাজের অভিজ্ঞতা লাগে না সাধারণ শ্রমিক হলেই হয়।

শেফ, শপিংমল, বাসা বাড়ির কাজ ও কৃষি কাজঃ বর্তমানে বাহরাইনে এইসব কাজের চাহিদাও রয়েছে তবে এসব কাজের বেতন অনেক কম। এইসব কাজের বেতন মাসে বাহরাইনের টাকায় ১৫০ দিনার থেকে ২০০ দিনার পর্যন্ত। যা বাংলাদেশি টাকায় হিসেব করলে মাসে বেতন ৪৫ হাজার থেকে ৬০ হাজার টাকা। তবে যদি এসব কাজে ওভারটাইম করার সুযোগ থাকে তাহলে মাসে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন।

শেষ কথাঃ

বর্তমান সময়ে অনেক মানুষ বাহরাইন বিভিন্ন কাজের জন্য যেতে চায় কিন্তু তাদের বাহরাইন কোন কাজের চাহিদা বেশি এবং বিভিন্ন কাজের বেতন সম্পর্কে জানা থাকে না। তাই সবার সুবিধার্থে আজকের পোস্টে বাহরাইন কোন কাজের চাহিদা বেশি এবং কোন কাজের বেতন কত তা বিস্তারিত তুলে ধরেছি। আশা করি আপনারা বাহরাইন কোন কাজের চাহিদা বেশি তা বিস্তারিত সংক্ষিপ্ত আকারে জানতে পেরেছেন। এছাড়াও এইরকম আরও নতুন নতুন তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন।

Leave a Comment