সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে ও কি কি কাগজপত্র লাগে ২০২৪

বর্তমান সময়ে মানুষ এখন সৌদি আরবে বিভিন্ন কাজের জন্য যায়। কেননা অন্যান্য দেশগুলোর তুলনায় সৌদি আরবে অনেক সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যায়। এছাড়াও অন্যান্য দেশের তুলনায় এই সৌদি আরবে যেতে অনেক কম টাকা খরচ হয়। এজন্য এখন বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষ জীবিকা নির্বাহ করার জন্য সৌদি আরবে যায়। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায় বেশিরভাগ লোকের সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে ও সৌদি আরব কোন কোন ভিসা পাওয়া যায় এবং সৌদি আরব যেতে কি কি লাগে তা জানা থাকে না।

সাধারণত বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলোর তুলনায় সৌদি আরব যেতে অনেক কম খরচ হয়। কিন্তু গতবছরের তুলনায় এ বছরে সৌদি আরব যাওয়ার খরচ অনেকটাই বেড়ে গেছে। তবে সরকারি সার্কুলার অনুযায়ী যদি সৌদি আরবের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারেন তাহলে খুব অল্প টাকায় সৌদি আরব পৌঁছে যেতে পারবেন। সেক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাদের সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে তা জেনে নিতে হবে। তাই আজকের পোস্টে সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে ও কি কি লাগে তা বিস্তারিত তুলে ধরবো।

সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে

মূলত সৌদি আরব যাওয়ার খরচ সম্পূর্ণ আপনার ভিসার ক্যাটাগরির ওপর নির্ভর করে। কারণ যদি সৌদি আরব কাজের ভিসা বা সৌদি আরব ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় কাজের জন্য যেতে চান তাহলে অন্যান্য ভিসার তুলনায় খরচ অনেক বেশি পড়বে। তবে যদি ফ্যামিলি ভিসিট ভিসা এবং টুরিস্ট ভিসায় সৌদি আরব যেতে চান তাহলে অল্প টাকায় যেতে পারবেন।

সৌদি আরব যাওয়ার জন্য আরো কিছু ভিসা চালু আছে আর একেক ভিসার দাম একেক রকম ভাবে নির্ধারণ করা থাকে। এজন্য অবশ্যই আপনাদের সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে তা জানার আগে সৌদি আরব কোন কোন ভিসা পাওয়া যায় তা জেনে নিতে হবে। তাই সবার সুবিধার্থে সৌদি আরব কোন কোন ভিসা পাওয়া যায় সেগুলো ভিসার নাম নিচে তুলে ধরা হলো।

  • কাজের ভিসা
  • কোম্পানি ভিসা
  • বিজনেস ভিসা
  • টুরিস্ট ভিসা
  • ফ্যামিলি ভিজিট ভিসা
  • হজ ভিসা
  • আলিম ভিসা ইত্যাদি।

সৌদি আরব কাজের ভিসা

সৌদি আরবে এখন বেশিরভাগ মানুষ জীবিকা নির্বাহ করার জন্য বিভিন্ন কাজের জন্য গিয়ে থাকে। সাধারণত সৌদি আরবের অন্যান্য ভিসার তুলনায় সৌদি আরব কাজের ভিসায় যেতে খরচ একটু বেশি হয়। গত বছরের তুলনায় এ বছরে সৌদি আরব কাজের জন্য যেতে অনেক বেশি খরচ হয়। সেক্ষেত্রে বর্তমান সময়ে যদি সৌদি আরব কাজের ভিসায় যেতে চান তাহলে ৫ লক্ষ থেকে ৬ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ পড়বে। তবে যদি দালালের মাধ্যমে যেতে চান তাহলে এর থেকে খরচ বেশিও লাগতে পারে।

সৌদি আরব কোম্পানি ভিসা

এখন অনেকে আছে সৌদি আরবের বিভিন্ন কোম্পানির মাধ্যমে কাজের জন্য যায়। মূলত যদি সৌদি আরবের কোন কোম্পানির থেকে কাজের ভিসা পেতে পারেন তাহলে খুব অল্প টাকায় সৌদি আরব কোম্পানি ভিসায় কাজের জন্য যেতে পারবেন। এছাড়াও দালালের মাধ্যমেও সৌদি আরবের কোম্পানি ভিসায় কাজের জন্য যেতে পারবেন সেক্ষেত্রে খরচ অনেক বেশি পড়বে। বর্তমান সময়ে সৌদি আরব কোম্পানির ভিসায় কাজের জন্য যেতে চাইলে ৪ লক্ষ ৫০ হাজার থেকে ৬ লক্ষ টাকা খরচ পড়বে।

আরো পড়ুনঃ সৌদি আরবের ভিসার দাম কত ও কোন ভিসা ভালো

সৌদি আরব বিজনেস ভিসা

বর্তমান সময়ে এমন অনেকে আছে যারা সৌদি আরবে বিজনেস করার জন্য অর্থাৎ সৌদি আরব বিজনেস ভিসায় যেতে চায়। সাধারণত সৌদি আরবের অন্যান্য ভিসা গুলোর তুলনায় সৌদি আরব বিজনেস ভিসার খরচ এবং সৌদি আরব বিজনেস ভিসায় যেতে অনেক বেশি খরচ হয়। বর্তমান সময়ে যদি সৌদি আরব বিজনেস ভিসায় যেতে চান তাহলে ১৮ লক্ষ থেকে ২২ লক্ষ টাকা খরচ পড়বে কিন্তু সময়ের ব্যবধানে খরচ এর থেকে বেশি অথবা কম হতে পারে।

সৌদি আরব হজ ভিসা

বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে এখন প্রায় ৫০% শতাংশের উপরে মানুষ হজ করতে যায়। সাধারণত হজের ভিসায় যাওয়ার জন্য দুই ধরনের হজের ভিসা পাওয়া যায় একটি হল ওমরা হজ এবং অপরটি হচ্ছে সরাসরি হজ। যদি ওমরা হজ করতে সৌদি আরব যান তাহলে অল্প টাকায় যেতে পারবেন সেক্ষেত্রে যদি বড় হজ করতে যান তাহলে খরচ অনেক বেশি পড়বে।

এখন বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় মানুষ সৌদি আরবে বড় হজ করতে যায়। সেই ক্ষেত্রে ওমরা হজের জন্য সৌদি আরব যেতে ৮০ হাজার থেকে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা খরচ পড়বে। এছাড়াও বড় হজের জন্য সৌদি আরব যেতে ৫ লক্ষ থেকে ৬ লক্ষ ৫০ হাজার খরচ পড়বে। কিন্তু কিছু কিছু সময়ে খরচ এর থেকে বেশি আবার এর থেকে কম লাগতে পারে।

সৌদি আরব আলিম ভিসা

এখন অনেকে সৌদি আরবে আলিম ভিসায় যেতে চায় কিন্তু তাদের সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে এবং সৌদি আরব আলিম ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে তা জানা থাকে না। এজন্য বেশিরভাগ মানুষ অনলাইনে সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে এবং সৌদি আরব আলিম ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে তা জানার আগ্রহ করে। বর্তমান সময়ে যদি সৌদি আরব আলিম ভিসায় যেতে চান তাহলে ৮০ হাজার থেকে ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ পড়বে।

সৌদি আরব টুরিস্ট ভিসা

সৌদি আরবে এখন অনেকে টুরিস্ট ভিসায় ভ্রমণ করতে গিয়ে থাকে। সৌদি আরবের অন্যান্য ভিসা গুলোর তুলনায় সৌদি আরব টুরিস্ট ভিসার খরচ অনেক কম। সেক্ষেত্রে যদি আপনারা বর্তমান সময়ে সৌদি আরব টুরিস্ট ভিসায় ভ্রমণ করতে যেতে চান তাহলে ১ লক্ষ ৫০ হাজার থেকে ২ লক্ষ টাকার উপরে খরচ পড়বে। কিন্তু সময়ের ব্যবধানে খরচ এর থেকে বেশি অথবা কম হতে পারে।

সৌদি আরব ফ্যামিলি ভিজিট ভিসা

অনেকে এখন সৌদি আরবে ফ্যামিলি নিয়ে সৌদি আরব ফ্যামিলি ভিজিট ভিসায় ভ্রমণ করতে যায়। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায় বেশিরভাগ মানুষের সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে বা সৌদি আরব ফ্যামিলি ভিজিট ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে তা জানা থাকে না। বর্তমান সময়ে যদি সৌদি আরব ফ্যামিলি ভিজিট ভিসায় যেতে চান তাহলে ১ লক্ষ ২০ হাজার থেকে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা লাগবে।

সৌদি আরব যেতে কি কি কাগজপত্র লাগে

সৌদি আরবে যেতে চাইলে অবশ্যই সৌদি আরবের যেকোনো একটি ভিসা থাকতে হবে আর ভিসা পাওয়ার জন্য অবশ্যই কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র লাগবে। কিন্তু বর্তমান সময়ে যারা সৌদি আরব যেতে চাচ্ছে তাদের মধ্যে অধিকাংশ লোকের সৌদি আরব যেতে কি কি কাগজপত্র লাগে তা জানা থাকে না। তাই সবার সুবিধার্থে সৌদি আরব যেতে কি কি কাগজপত্র লাগে সেগুলো নিচে তুলে ধরা হলো।

  • একটি বৈধ পাসপোর্ট
  • পাসপোর্ট সাইজের ২টি রঙিন ছবি
  • জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট
  • সৌদি আরবে যে কোম্পানির মাধ্যমে যাবেন ওই কোম্পানির অনলাইন ফটোকপি ইত্যাদি।

শেষ কথাঃ

বাংলাদেশ থেকে এখন বেশিরভাগ মানুষ সৌদি আরবে বিভিন্ন ভিসায় গিয়ে থাকে। কিন্তু অধিকাংশ মানুষের সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে এবং কি কি কাগজপত্র লাগে তা জানা থাকে না। তাই আজকের পোস্টে সবার সুবিধার্থে সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে এবং সৌদি আরব যেতে কি কি কাগজপত্র লাগে তা বিস্তারিত তুলে ধরেছি। আশা করি আপনারা সৌদি আরব যেতে কত টাকা লাগে তা জানতে পেরেছেন। এছাড়াও এইরকম আরো ভিসা সম্পর্কিত নতুন কিছু পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন।

Leave a Comment