ফিজি যেতে কত টাকা লাগে ও কি কি লাগে ২০২৪

ফিজি দেশটি সবার পরিচিত না হলেও এই দেশটি অনেকের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। অন্যান্য দেশের তুলনায় এই ফিজিতে কাজের মান অর্থাৎ মাসে অনেক বেশি টাকা উত্তোলন করা যায়। এজন্য বাংলাদেশের অনেক শ্রমিক আছে যারা ফিজি কাজের ভিসায় যেতে চায়। কিন্তু অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায় ফিজি যেতে কত টাকা লাগে তা বিস্তারিত জানা থাকে না। কেননা বর্তমান সময়ে ফিজিতে যাওয়ার জন্য কয়েক ধরনের ভিসা পাওয়া যায় আর একেক ভিসার দাম একেক ভাবে নির্ধারণ করা থাকে।

সেক্ষেত্রে যদি আপনারা ফিজি টুরিস্ট ভিসা অথবা স্টুডেন্ট ভিসায় যেতে চান তাহলে ফিজি কাজের ভিসার তুলনায় খরচ অনেক কম হবে। কারণ ফিজির অন্যান্য ভিসার তুলনায় ফিজি কাজের ভিসা এবং ওয়ার্ক পারমিট ভিসার দাম অনেক বেশি। এজন্য অনেকে নির্ধারিতভাবে বুঝতে পারেনা ফিজি যেতে কত টাকা লাগে এবং প্রয়োজনীয় কি কি লাগে। তাই সবার সুবিধার্থে আজকের পোস্টে ফিজি যেতে কত টাকা লাগে এবং ভিসার জন্য কি কি কাগজপত্র লাগে তা সহ আরো কিছু বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরবো।

ফিজি যেতে কত টাকা লাগে

সাধারণত ফিজি যেতে কত টাকা লাগে এটা সম্পূর্ণ আপনার ভিসার ক্যাটাগরির উপর নির্ভর করে। কেননা আপনারা হয়তোবা সবাই জানেন ভিসার দাম ভিসার ধরনের ওপর নির্ভর করে। সেক্ষেত্রে যদি আপনারা ফিজিতে ভ্রমণ করার জন্য অর্থাৎ টুরিস্ট ভিসা অথবা স্টুডেন্ট ভিসায় যেতে চান তাহলে ভিসা খরচ অনেক কম হবে। এছাড়াও যদি আপনারা ফিজিতে কাজের জন্য অর্থাৎ ফিজি কাজের ভিসা অথবা ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যেতে চান তাহলে অন্যান্য ভিসার তুলনায় খরচ বেশি পড়বে।

তবে আপনারা খরচ কমানোর জন্য সরকারি সার্কুলার এর অপেক্ষা করতে পারেন। কেননা অন্যান্য মাধ্যমের চাইতে সরকারিভাবে ভিসার আবেদন করতে পারলে ভিসা খরচ অনেক কম হয়। এছাড়াও আপনারা এজেন্সির মাধ্যমেও ফিজির ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন তবে ভিসা খরচ অনেক বেশি পরবে। আপনারা একটা কাজ করতে পারেন যদি ফিজিতে কাছের কোন পরিচিত লোক থাকে তাহলে তাদের সাহায্য নিয়ে এজেন্সির মাধ্যমে ভিসার জন্য আবেদন করতে পারেন।

কারণ সরকারি ভাবে ভিসা করতে যত টাকা খরচ হয় এই মাধ্যমেও তত পরিমাণ টাকাই খরচ হয়। সাধারণভাবে যদি আপনারা ফিজি ট্যুরিস্ট ভিসা এবং স্টুডেন্ট ভিসায় যেতে চান তাহলে সর্বমোট ৩ লক্ষ থেকে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত খরচ পড়বে। এছাড়াও যদি আপনারা সাধারণভাবে ফিজিতে কাজের জন্য অর্থাৎ ফিজি কাজের ভিসা এবং ফিজি ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যেতে চান তাহলে সবমিলিয়ে ৬ লক্ষ থেকে ৭ লক্ষ টাকা পর্যন্ত খরচ পড়বে কিন্তু সময়ের ব্যবধানে খরচ কম অথবা বেশি হতে পারে।

ফিজি কাজের ভিসা

এখন প্রায় সব মানুষই জীবিকা নির্বাহ করার জন্য ফিজিতে কাজের জন্য যেতে চায়। কেননা ফিজির অন্যান্য ভিসাগুলোর তুলনায় ফিজি কাজের ভিসার প্রচুর চাহিদা রয়েছে। আপনারা কম বেশি সবাই জানেন ফিজি হচ্ছে একটি দ্বীপের রাষ্ট্র যেখানে অন্যান্য কাজের তুলনায় মাছ ধরার কাজের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। তবে শুধু যে মাছ ধরার কাজ রয়েছে এমন কিন্তু না এছাড়াও কনস্ট্রাকশন, ইলেকট্রিশিয়ান এবং ড্রাইভিং সহ আরো অনেক ধরনের কাজের প্রচুর চাহিদা রয়েছে।

সাধারণত আপনারা ফিজি কাজের জন্য আপনারা দুই ধরনের ভিসা পেয়ে যাবেন একটি হচ্ছে স্বল্প মেয়াদী অর্থাৎ ১ বছর মেয়াদী ফিজি কাজের ভিসা এবং অপরটি হচ্ছে দৈর্ঘ্য মেয়াদী অর্থাৎ ৩ বছর মেয়াদী ফিজি কাজের ভিসা। যদি আপনারা স্বল্প মেয়াদী ভিসা করতে চান তাহলে খরচ কম হবে এবং দৈর্ঘ্য মেয়াদী ভিসা করতে চাইলে খরচ বেশি পড়বে। সেক্ষেত্রে যদি আপনারা ফিজি কাজের ভিসা করতে চান তাহলে ৫ লক্ষ থেকে ৭ লক্ষ টাকার উপরে সব মিলিয়ে খরচ পড়বে।

আরো পড়ুনঃ ফিজি কাজের বেতন কত ও সর্বনিম্ন বেতন কত

ফিজি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা

এখন বাংলাদেশের অনেক শ্রমিক আছে যারা ফিজি ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যেতে চায় কিন্তু তাদের ফিজি যেতে কত টাকা লাগে ৫-৬ বা ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে তা জানা থাকে না। সাধারণত ফিজির অন্যান্য ভিসা গুলোর তুলনায় ফিজি ওয়ার্ক পারমিট ভিসার প্রচুর চাহিদা এবং ভিসার দাম অনেক বেশি। প্রত্যেক বছরের নির্দিষ্ট একটা সময়ে ফিজির সরকার বিভিন্ন কাজের চাহিদা অনুযায়ী ফিজি ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে থাকে।

তখন আপনারা চাইলে অল্প খরচে সরকারিভাবে ফিজির ভিসা করে নিতে পারেন। এছাড়াও যদি বেসরকারিভাবে এজেন্সির মাধ্যমে যেতে চান তাহলে ভিসা খরচ অনেক বেশি পড়বে। বর্তমান সময়ে যদি ফিজি ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যেতে চান তাহলে সব মিলিয়ে ৬ লক্ষ থেকে ৭ লক্ষ টাকার উপরে খরচ পড়বে। সেক্ষেত্রে যদি আপনারা সরকারি সার্কুলার অনুযায়ী ভিসার আবেদন করে ভিসা পেতে পারেন তাহলে খুব অল্প টাকায় ফিজি ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যেতে পারবেন।

ফিজি কাজের ভিসার জন্য কি কি লাগে

এখন বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় মানুষ ফিজিতে কাজের জন্য যেতে চায়। সাধারণত ফিজিতে কাজের জন্য যেতে চাইলে অবশ্যই ফিজি কাজের ভিসা প্রয়োজন হবে। সেক্ষেত্রে যদি কাজের ভিসা পেতে চান তাহলে অবশ্যই ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে আর আবেদন করতে হলে আপনাদের কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র লাগবে। যেগুলো কাগজপত্র প্রধান করে ভিসা আবেদন কাজ সম্পন্ন করতে হবে। এজন্য এখন আপনাদের মাঝে ফিজি কাজের ভিসার জন্য কি কি কাগজপত্র লাগে সেগুলো তুলে ধরবো।

  • একটি বৈধ পাসপোর্ট
  • ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি
  • এনআইডি কার্ড অথবা জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি
  • ফিজির ভিসা আবেদন ফরম
  • মেডিকেল সার্টিফিকেট
  • ব্যাংক স্টেটমেন্টের ফটোকপি
  • যেকোনো একটি কাজের দক্ষতা সার্টিফিকেট
  • নিয়োগকর্তার পাঠানো কাজের আমন্ত্রণপত্র ইত্যাদি।

শেষ কথাঃ

এখন অনেকেই এই দ্বীপের দেশ ফিজিতে বিভিন্ন ধরনের ভিসায় যেতে চায়। কিন্তু অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায় ফিজি যেতে কত টাকা লাগে এবং কি কি লাগে তা বিস্তারিত জানা থাকে না। তাই সবার সুবিধার্থে আজকের পোস্টে ফিজি যেতে কত টাকা লাগে এবং কি কি কাগজপত্র লাগে তা সহ আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য তুলে ধরেছি। আশা করি আপনারা সবাই ফিজি যেতে কত টাকা লাগে তা জানতে পেরেছেন। এছাড়াও যদি এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্টে জানিয়ে যাবেন।

Leave a Comment